ঢাকাবুধবার , ২৬ জানুয়ারি ২০২২
  1. অপরাধ
  2. অর্থনৈতিক
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম
  6. খুলনা
  7. খেলাধুলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্টগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. জেলা/উপজেলা
  12. জোকস
  13. ঢাকা
  14. তথ্য প্রযুক্তি
  15. ধর্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শিকড় শিখন কেন্দ্র পরিচালনা কমিটি এর সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর

স্টাফ রিপোর্টার
জানুয়ারি ২৬, ২০২২ ৫:০৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 ইউসুফ চৌধুরী-রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রাজশাহীতে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ, পবা এপি কর্তৃক আয়োজিত, নওহাটা পৌরসভা এলাকার বারইপাড়া লার্নিং রুটর্স সেন্টার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হল “কেন্দ্র পরিচালনা কমিটি এর সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান”। রবিবার (২৩ জানুয়ারী) শিকড় শিখন কেন্দ্র পরিচালনা কমিটি এর সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নওহাটা পৌরসভা মেয়র মো: হাফিজুর রহমান হাফিজ।ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ সিনিয়র ম্যানেজার সেবাষ্টিয়ান পিউরীফিকেশন, কাউন্সিলরবৃন্দ, পবা এরিয়া প্রোগ্রাম অফিসার পলাশ হিউবার্ট বিশ্বাস, ৮টি লার্নিং রুটর্স সেন্টারের সম্মানীত সভাপতিবৃন্দ, স্থানীয় নেত্রীবৃন্দ ও অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত থেকে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান সম্পাদিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পবা এপি, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের লার্নিং রুটর্স সেন্টারের প্রশংসা করেন ও নিজে বারইপাড়া সেন্টারের জন্য প্লাস্টিক ফাইবারটিন ও কুমড়াপুকুর সেন্টারের জন্য ৫০০ উন্নত জাতের পেঁপে চারা বিতরণের ঘোষণা করেন। এসময় তিনি লার্নিং রুটর্স সেন্টার পরিদর্শন করেন এবং পিঠা উৎসবে অংশগ্রহন করেন। তিনি আরও উল্লেখ করেন যে কমলমতি শিশুরা একসাথে বিভিন্ন ইভেন্ট বিশেষ করে যেমন কর্ণার গেম, বাহিরের খেলা, গান ও নাচের মাধ্যমে যে শিক্ষাগ্রহন করছে তা খুবই উপকারী এবং শিশুরা আনন্দের সাথে বেড়ে উঠছে। পবা এলাকায় ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ মোট ৩৫টি লার্নিং রুটর্স সেন্টার (হুজুরীপাড়া-০৬, দর্শনপাড়া-৭, দামকুড়া-৭, হরিপুর-৭ ও নওহাটা-৮) পরিচালনা করে আসছে, যেখানে ৩ থেকে ৫ বছরের বয়সী ৭০০ শিশুর বুদ্ধির বিকাশ, সামাজিক ও আবেগীয় বিকাশ, ভাষার বিকাশ ও শারিরীক বিকাশ সাধন করে আনুষ্ঠানিক বিদ্যালয়ে ভর্তি উপযোগী করে গড়ে তোলা হয়। উল্লেখ্য যে, এসব সেন্টারের শিশুরা পরবর্তীতে স্কুলের বিভিন্ন পরীক্ষা ও কর্মসূচীতে কৃতিত্বের সাথে অংশগ্রহণ করে। এছাড়া লার্নিং রুটর্স সেন্টারের ৭০০ এবং সেন্টারের আশেপাশের আরও ৭০০ (৬ থেকে ৩৬ মাসবয়স) মোট ১৪০০ শিশুকে মাসে একবার এলাকার জনগনের সহযোগীতায় পুষ্টিকর খিচুড়ি খাওয়ানো হয় এবং তাদের জি এম পি- এর মাধ্যমে পুষ্টির অবস্থা মনিটরিং করা হয়।

প্রিয় পাঠক, আপনিও একুশে বার্তা অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন ekusheybartaonline@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

x