ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৫ অক্টোবর ২০২০
  • অন্যান্য
  1. অপরাধ
  2. অর্থনৈতিক
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম
  6. খুলনা
  7. খেলাধুলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্টগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. জেলা/উপজেলা
  12. জোকস
  13. ঢাকা
  14. তথ্য প্রযুক্তি
  15. ধর্ম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঈদগড়-ঈদগাঁও-বাইশারী সড়কে ডাকাতের হাতে জনি ও কালু হত্যার প্রতিবাদে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ও মানববন্ধন

একুশে বার্তা
অক্টোবর ১৫, ২০২০ ৩:৪৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আবদুর রশিদ,নাইক্ষ্যংছড়ি,বান্দরবান:
কক্সবাজারের রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নের বাসিন্দা শিশু শিল্পী জনি রাজ দে ও মোঃ কালু কে ইদগড়-ঈদগাঁও সড়কে দিন-দুপুরে ডাকাত ও সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার প্রতিবাদে এবং বিজিবি ক্যাম্প, সেনা ক্যাম্প স্থাপনের দাবীতে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত হরতালের ডাক দিয়েছেন সাধারন জনতা। এর পাশাপাশি চলছে বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ।

বৃহস্পতিবার ১৫ই অক্টোবর সকাল থেকে পুর্ব ঘোষনা মোতাবেক বাইশারী-ঈদগড়-ঈদগাঁও সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছেনা। যাত্রী সাধারনের পড়তে হয়েছে চরম দুর্ভোগ। হরতালের সমর্থনে যোগ দিয়েছেন ঈদগড়ের শত শত জনতা।

উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে সিএনজি অটোরিকশায় সংঘটিত মুখোশধারীদের ডাকাতির ঘটনায় শিশু শিল্পী জনি দে রাজ সহ নিহতের সংখ্যা দাড়ালো ২ জনে।

নিহত আঞ্চলিক গানের প্রতিভাবান শিশু শিল্পী জনি দে রাজ রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নের চরপাড়ার তপন দের ছেলে। তিনি ঈদগাঁহ ফরিদ আহমদ ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির মানবিক শাখার শিক্ষার্থী ছিলেন।

ওই দিন সিএনজি অটোরিকশা যাত্রী রামু ঈদগড় এলাকার মোহাম্মদ কালু গুরুতর আহত হয়েছিলেন। তাকে প্রথমে ঈদগাঁহ হাসপাতালে, পরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল ও পরে আশংকাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে দুইদিন মৃত্যুর সাথে লড়ে অবশেষে শনিবার সন্ধ্যায় তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

নিহত মোহাম্মদ কালু কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণ মাইজপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল হাকিমের ছেলে। তিনি ঈদগড় ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামেও বাড়ী নির্মাণ করে দীর্ঘদিন সেখানে বসবাস করছে।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার দিকে ঈদগাহ বাসস্টেশন থেকে ঈদগড় অভিমূখি একটি সিএজি অটোরিকশা (নং কক্সবাজার-থ-১১..) গাড়ি হিমছড়ি নামক স্থানে ডাকাতের কবলিত হয়। এসময় উদীয়মান তরুণ শিল্পী জনি দে রাজ ডাকাতের এলোপাতাড়ি চাপাতির আঘাতে নির্মমভাবে ঘটনাস্থলে নিহত হন।

উক্ত হরতাল ও মানববন্ধন উপস্থিত ছিলেন, ঈদগড় এএমবি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র সংসদের সভাপতি নুরুল আবছার, প্রাক্তন ছাত্র সংসদ সাবেক সাঃ সম্পাদক ও শিক্ষক রশীদুল আলম রিয়াদ, সাধারণ সম্পাদক শাহা মোহাম্মদ তৌহিদ ইসলাম, অর্থ সম্পাদক নুরুল হুদা, ছাত্র নেতা হারুন রশিদ, মামুন রশিদ ঢাবির আইন বিভাগের ছাত্র মহি উদ্দিন, মুমিনুল হক, কৃষি অফিসার আবু আলা-আসাদ বাবলু, প্রাক্তন ছাত্র সংসদের দপ্তর সম্পাদক জালাল আহমেদ, হিন্দু ঐক্য পরিষদ সভাপতি বাবু অদির দে, সমাজ সেবক ফরিদুল আলম, ব্যবসায়ী আহাছাব উল্লাহ, ডাঃ সাহাব উদ্দিন, বাজার সমিতি সাঃ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন, ডুয়েট ছাত্র ও প্রাক্তন ছাত্র সংসদের সদস্য মোহাম্মদ আইয়ুব, মোহাম্মদ হাসেম, শ্রমিক নেতার নেজাম উদ্দিনসহ শত জনতার দাবী মোহাম্মদ কালু ও শিল্পী জনি দে রাজ হত্যা কারীদের গ্রেপ্তারের দাবী এবং সেনা ও বিজিবির ক্যাম্প স্থাপনের প্রতিবাদে হরতাল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন ঈদগড়ের বিভিন্ন সংগঠন।

প্রিয় পাঠক, আপনিও একুশে বার্তা অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন ekusheybartaonline@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

x